মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৪:২৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
রায়পুর পৌর আ.লীগ সভাপতির বাক্কিবিল্লাহ’র উদ্যোগে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত রায়পুরে মদীনাতুল উলুম নূরানি হাফেজিয়া মাদ্রাসার বার্ষিক ক্রিড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত রায়পুরের উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে পুনরায় চেয়ারম্যান হতে চান অধ্যক্ষ মামুন রায়পুরে ষড়যন্ত্রমূলক ও মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন লক্ষ্মীপুরে বসত ঘরে ঢুকে নারীকে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার ৭! লক্ষ্মীপুরে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে গুলি-হামলায় ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু! লক্ষ্মীপু‌রে সেপ‌টিক ট্যাং‌কে নে‌মে বা‌ড়ির মা‌লিক সহ দুই জন নিহত রায়পুরে সরকারি চাল ওজনে কম দেওয়ার অভিযোগ ইউপি চেয়ারম্যান তাফাজ্জল’র বিরুদ্ধে তৃতীয় বারের মত রায়পুর প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া অনুষ্ঠিত বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাসের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে বেঙ্গল স্যু ইন্ড্রাষ্টিজ’র শ্রমিকরা

রায়পুরে সরকারি চাল ওজনে কম দেওয়ার অভিযোগ ইউপি চেয়ারম্যান তাফাজ্জল’র বিরুদ্ধে

দেশ যুগান্তর প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৭ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৬৮ বার দেখা হয়েছে

নিউজ ডেস্ক: লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার বামনী ইউনিয়নে ভিজিএফের চাল ওজনে কম দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। শনিবার (৭ মার্চ) বামনী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফাজ্জল মুন্সীরে উপস্থিতিতে জনপ্রতি ৮ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়।

এছাড়াও চাল নিতে আসা নিরীহ ও প্রতিবন্ধী লোকজনকে মারধর ও গালমন্দ করার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এসব ঘটনার প্রতিবার করলে স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাথে চেয়ারম্যানের গট্টগল শুর হয়। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে।

জানা যায়, এবারের ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বামনী ইউনিয়নে ২ হাজার ৫’শ টি কার্ড বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। সরকারি নির্দেশ মোতাবেক জনপ্রতি ১০ কেজি করে চাল বিতরণের নিয়ম থাকলেও বামনী ইউনিয়নে ৮ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়েছে। ভিজিএফ চাল বিতরণের সময় বামনী ইউনিয়ন পরিষদের ট্যাগ অফিসার উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। তার সামনেই চেয়ারম্যান এসব কর্মকান্ড করেন।

চাল নিতে আসা সাইছা গ্রামের শ্যামল নামের এক ব্যক্তি বলেন, ১০ কেজির জায়গা ৮ কেজি চাল দেওয়ার কথা চেয়ারম্যানকে জানালে তিনি আমার উপর উত্তেজিত হয়ে আমাকে ধাক্কা দিয়ে গালমন্দ করে। পরে আমি কাঁদতে কাঁদতে চলে আসি।
প্যানেল চেয়ারম্যান সুমন পাটোয়ারী বলেন, আমার ওয়ার্ডের লোকজনের চাল ওজনে কম হওয়ার কথা জানতে চাইলে তিনি আমার মাকে তুলে গালমন্দ করে এবং আমার হাতের কিছু কার্ড নিয়ে ছিড়ে ফেলে। তাই অনেকেই চাল না পেয়ে বাড়ীতে চলে যায়।

ট্যাগ অফিসার সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘১০ কেজির নিচে চাল দেওয়ার কোনও সুযোগ নেই। চাল কম পড়লে তা পূরণ করে দেওয়া হবে।’

উপজেলা খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা বলেন, ‘গোডাউন থেকে চাল কম দেওয়া হয় না। গোডাউন থেকে সঠিক পরিমাপ করে বুঝে নেওয়ার পরে চাল কমের অভিযোগ আমরা গ্রহণ করবো না।’

চেয়ারম্যান তোফাজ্জল মুন্সী বলেন, ‘প্রতি বস্তায় গোডাউন থেকে চাল ওজনে কম দেওয়া হয়েছে। তাই আমারা জনপ্রতি ৫০০ গ্রাম করে চাল কম দিতে বলেছি। বিশ্বাস না হলে আপনারা চালের বস্তাগুলো মেপে দেখেন। গলমন্দের বিষয়টি সঠিক নয়।’

আপনার মন্তব্য লিখুন

আমাদের YouTube চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
Don`t copy text!
© All rights reserved © 2021 Desh Jugantor
Design & Developed by RJ Ranzit
themesba-lates1749691102
Don`t copy text!